x-video.center fuck from above. azure storm masturbating on give me pink gonzo style. motphim.cc sexvideos

প্রথম প্রোগ্রামার : কম্পিউটার বিজ্ঞানে এক নারীর অবদান

1

প্রোগ্রাম হচ্ছে কম্পিউটারের ভাষায় লিখা কতগুলো কমান্ড বা নির্দেশের সমষ্টি যা দিয়ে কম্পিউটার মূলত কোন সমস্যার সমাধান করে থাকে । কম্পিউটার প্রোগ্রামের এই ধারনা প্রথম দেন ১৯ শতকের এক নারী গণিতবিদ , অগাস্টা অ্যাডা ।

১০ ডিসেম্বর ১৮১৫, জন্মগ্রহণ করেন ইংরেজি সাহিত্যের রোম্যান্টিক পিরিয়ডের বিখ্যাত কবি লর্ড জর্জ বায়ারন এবং লেডি এনা ইসাবেলা বায়রনের কণ্যা অগাস্টা অ্যাডা বায়রন । ১৮৩৫ সালে ৮ম ব্যাবন কিং উইলিয়াম কিং কে বিয়ে করার পর তিনি কাউন্টেস অব ল্যাভলেস বা অ্যাডা ল্যাভলেস নামে পরিচিত হন ।

জন্মের কিছুদিন পরেই বাবা-মার বিবাহ বিচ্ছেদ হয়ে যাওয়ায় অ্যাডা তাঁর মার কাছেই বড় হন । অন্যদিকে বায়রনের ইংল্যান্ড ছেড়ে চলে যাওয়ায় অ্যাডা তাঁর পিতাকে কোনদিন দেখতে পাননি । ১৮২৪ সালে অ্যাডার বয়স যখন ৮ তখন লর্ড বায়রন মৃত্যুবরণ করেন ।

মা লেডি বায়রন সাহিত্য, বিজ্ঞান, দর্শন এবং গণিতে পারদর্শী ছিলেন । তিনি চাইতেন মেয়ে অ্যাডা যেন তাঁর পিতার পথানুসারী না হয় । এজন্য তিনি অ্যাডাকে গণিত ও বিজ্ঞান শিক্ষায় জোর দেন । অল্প সময়ের মধ্যেই সংখ্যা এবং ভাষার উপর অ্যাডার  বুদ্ধিমত্তা প্রকাশ পায় । অ্যাডা সমাজ সংস্কারক উইলিয়াম ফ্র্যান্ড, পারিবারিক ডাক্তার উইলিয়াম কিং এবং স্কটিশ জ্যোতির্বিদ ও গণিতবিদ মেরি সমারভিল –এর সহচারয পান । বিজ্ঞানী মাইকেল ফ্যারাডে এবং চার্লস ডিকেন্স এর সাথেও তাঁর ভালো সম্পর্ক ছিল ।

অগাস্টা অ্যাডা বায়রনঅগাস্টা অ্যাডা ১৭ বছর বয়সে কম্পিউটারের জনক ইংল্যান্ডের কেমব্রিজ বিশ্ববিদ্যালয়ের গণিতের অধ্যাপক চার্লস ব্যাবেজ এর সাথে পরিচত হন । কিশোরী অ্যাডার বুদ্ধিমত্তায় ব্যাবেজ মুগ্ধ হন । তাঁদের মধ্যে ভালো বন্ধুত্বও গড়ে উঠে । ব্যাবেজের সাহায্যে অ্যাডা প্রফেসর ডি মর্গান এর কাছে গণিত শিক্ষা শুরু করেন । ব্যাবেজ ১৮৩৩ সালে এন্যালিটিক্যাল ইঞ্জিন নামে একটি যন্ত্র তৈরির পরিকল্পনা করেন যেটাতে সাধারণত অ্যাসেম্বলি ভাষায় প্রোগ্রাম করার ব্যবস্থা ছিল । ব্যাবেজ এন্যালিটিক্যাল ইঞ্জিনের গবেষণা নিয়ে অগাস্টা অ্যাডার সাথে আলোচনা করতেন ।

১৮৪২ সালে ব্যাবেজ তুরিন বিশ্ববিদ্যালয়ে এন্যালিটিক্যাল ইঞ্জিন নিয়ে একটি বক্তৃতা দেন । ইতালিয়ান গণিতবিদ লুইজি মেনেব্রেয়া এই বক্তৃতাটির উপর ফ্র্যান্স ভাষায় একটি আর্টিকেল লিখেন । এই আর্টিকেলটি ইংরেজিতে অনুবাদ করার অনুমতি পেয়ে অ্যাডা শুধু অনুবাদই করেননি বরং এতে তিনি তাঁর নিজস্ব চিন্তা ভাবনাও যুক্ত করেন । ১৮৪৩ সালে একটি ইংলিশ জার্নালে এই অনুবাদটি প্রকাশিত হয় । মূল আর্টিকেল হতে অ্যাডার মতামত সংবলিত নোটটি ছিল তিনগুন বড় ।

অ্যাডার আর্টিকেল থেকে পরিষ্কার বুঝা যায় যে, এন্যালিটিক্যাল ইঞ্জিন সম্পর্কে তাঁর ভালো ধারণা ছিল । তিনি এতে ব্যাখা করেন, কিভাবে code করলে তা যন্ত্রটি অক্ষর ও চিহ্নকে নাম্বারের সাথে সাথে প্রসেস করতে পারবে । অ্যাডা তাঁর নোটে একটি method ও উল্লেখ করেন যা দিয়ে Series of instruction এর পুনরাবৃত্তি করা যায় । বর্তমানে এই method টি কম্পিউটার প্রোগ্রামে Looping নামে পরিচিত । তিনি প্রোগ্রামিং ও কম্পিউটার নিয়ে আরও কিছু উন্নত ধারণা তাঁর নোটে উল্লেখ করেন । অ্যাডা তাঁর অসামান্য কাজের জন্যই কম্পিউটার ইতিহাসে প্রথম প্রোগামারের স্বীকৃতি পান ।

ল্যাভলেস ২৭ নভেম্বর ১৮৫২ সালে ক্যান্সার আক্রান্ত হয়ে মাত্র ৩৬ বছর বয়সে মারা যান ।

মৃত্যুর প্রায় ১৫০ বছর পর ১৯৫০ সালে কম্পিউটার সায়েন্সে অ্যাডা ল্যাভলেসের অবদানটি নজরে আসে এবং ১৯৫৩ সালে B.V. Bowden অ্যাডার আর্টিকেলটি “ Faster than Thought: A Symposium on Digital computing Machines” –এ পুনঃপ্রকাশ করেন । ১৯৮০ সালে The U.S Department of defense একটি নতুন কম্পিউটার ল্যাঙ্গুয়েজের নামকরন করে “Ada” । অগাস্টা অ্যাডা ল্যাভলেসের কম্পিউটার প্রোগ্রামিং এ বিশেষ অবদানের জন্য বিশ্বব্যাপী ২৪ মার্চ “অ্যাডা ল্যাভলেস” দিবস হিসেবে পালিত হয় ।

 

সূত্রঃ biography.com, mentalfloss.com, WiKi   

Leave A Reply
1 Comment
  1. Gyeehl says

    order levofloxacin 500mg generic buy levofloxacin for sale

sex videos ko ko fucks her lover. girlfriends blonde and brunette share sex toys. desi porn porn videos hot brutal vaginal fisting.